প্রধানমন্ত্রীর উপসাগরীয় দেশ সফর

For Sharing

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কার্যভার গ্রহণের পর থেকে মধ্য প্রাচ্য ও উপসাগরীয় দেশগুলির সঙ্গে ভারতের সম্পর্কের ব্যাপক পরিবর্তন ঘটেছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সম্প্রতি প্যালেস্টাইন, সংযুক্ত আরব আমীরশাহী এবং ওমান সফরে গিয়েছিলেন। দুবাইয়ে ষষ্ঠ বিশ্ব সরকার শিখর সম্মেলনে তিনি বিশেষ অতিথি হিসেবে “প্রযুক্তি ও বিকাশ” সম্পর্কে মূল ভাষণ দেন।
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর রাষ্ট্রপতি ও আবু ধাবির শাসক শেখ খলিফা বিন জায়েদ আল নাহায়ান এবং যুবরাজ শেখ মহম্মদ বিন জায়েদ আল নাহায়নের সঙ্গে বৈঠক করেন। এছাড়া, তিনি সে দেশের আমীর মহম্মদ বিন রশিদ আল মাখতুমের সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন।
উভয় পক্ষের মধ্যে প্রতিনিধি পর্যায়ে আলোচনা হয়। ONGC বিদেশ লিমিটেড, IOC ও BPRL’এর সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। সংযুক্ত আরব আমীরশাহীতে ৩.৩ মিলিয়ন ভারতীয় শ্রমিক রয়েছেন। UAE এবং ভারতের মধ্যে শ্রমিক সংক্রান্ত একটি চুক্তিও স্বাক্ষরিত হয়। ভারতের রেল মন্ত্রক এবং UAE’র পরিবহণ মন্ত্রকের মধ্যেও MoU স্বাক্ষরিত হয়।
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সংযুক্ত আরব আমীরশাহীতে হিন্দু মন্দির গড়ে তোলার জন্য জমি দেওয়ায় আবু ধাবির শাসক ও সরকারকে ধন্যবাদ জানান।
সফরের শেষ পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী সুলতান কাবুস বিন সইদের আমন্ত্রণে মাস্কট সফর করেন। সেখানে দ্বিপাক্ষিক, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক বিষয় নিয়ে তাঁদের মধ্যে কথা হয়। অত্যন্ত বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশে তাঁদের মধ্যে আলোচনা হয়।
প্রধানমন্ত্রী তাঁর ওমান সফর সম্পর্কে বলেন, তাঁর এই সফর দুই দেশের মধ্যে শতাব্দী প্রাচীন বন্ধন আরও মজবুত করবে; এবং বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সহ বহু ক্ষেত্রে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা বৃদ্ধির পথ সুগম করবে।
ভারত এবং ওমান দ্বিপাক্ষিক, কৌশলগত অংশীদারিত্ব এবং সামুদ্রিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা মজবুত করার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেছে।
উভয় পক্ষ বিশ্ব শান্তির ক্ষেত্রে সন্ত্রাসবাদের আশংকার বিষয়ে উদ্বেগ ব্যক্ত করেছে এবং একযোগে এই সমস্যার মোকাবিলা করতে সম্মত হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রীর এই সফর এই দেশগুলির সঙ্গে ভারতের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও মজবুত করবে বলেই আশা করা যায়। (মূল রচনাঃ পদম সিং)