আজকের সংবাদপত্র থেকে

For Sharing

আজ পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা এবং বাংলাদেশের ঢাকা থেকে প্রকাশিত বাংলা সংবাদপত্রগুলিতে ভিন্ন ভিন্ন বিষয় প্রাধান্য পেয়েছে।

কলকাতা থেকে প্রকাশিত ‘আনন্দবাজার পত্রিকা’ “গাজা: নিন্দা রাষ্ট্রপুঞ্জের” শীর্ষক একটি খবর  প্রকাশ করেছে। পত্রিকাটি লিখেছে,

“চার বছর আগেকার পরিস্থিতি যেন গাজ়ায়। সোমবার জেরুসালেমে মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধন ঘিরে বিক্ষোভ চরম মাত্রা নিয়েছে। নিহতের সংখ্যা ৬০ ছুঁয়েছে বলে প্যালেস্তাইনের দাবি।

মঙ্গলবার ছিল নাকবা। ইজ়রায়েল প্রতিষ্ঠার পরপরই ১৯৪৮ সালের যুদ্ধ চলাকালীন ১৫ মে দিনটিতে সাত লক্ষেরও বেশি প্যালেস্তাইনিকে বহিষ্কার করা হয়। এই দিনটিকে প্যালেস্তাইনিরা ‘নাকবা’ বা ‘বিপর্যয়’ হিসেবে দেখেন। এ দিন অশান্তি ব্যাপক আকার নেবে, আশঙ্কা ছিলই।

সারা দিনে কিছু কিছু বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষের খবর মিলেছে। গাজ়া সীমান্তে প্রাণ হারিয়েছেন এক প্রৌঢ়, নাসির ঘোরাব।  তবে মঙ্গলবার ছিল অন্ত্যেষ্টিরও দিন। গতকাল ইজ়রায়েলি সেনার হামলায় নিহতদের কবর দেওয়া হয় আজই। হামলা বাড়ার আশঙ্কা থাকলেও প্যালেস্তাইনি গোষ্ঠীগুলি জানায়, আপাতত প্রতিবাদ বন্ধ রাখছে তারা।

প্যালেস্তাইনিদের দাবি, ২৭০০ জন আহত হয়েছেন সোমবারের সংঘর্ষে। রাষ্ট্রপুঞ্জের মানবাধিকার দফতর ইজ়রায়েলের কড়া সমালোচনা করেছে। দফতরের মুখপাত্র রুপার্ট কোলভিল জেনিভায় বলেছেন, ‘‘কেউ সীমান্তের দিকে এগিয়ে আসছে বলে তাদের গুলি করে মারতে হবে?’’ বিশ্ব জুড়ে সমালোচনার মুখে ইজ়রায়েলকে আন্তর্জাতিক অপরাধ দমন আদালতে তোলা হবে বলেও গুঞ্জন শুরু হয়েছে।

গাজ়ার মূল হাসপাতাল শিফায় দাঁড়ানোর জায়গা ছিল না। গুলিতে আহতদের চিকিৎসা তো চলছেই। বহু মানুষ এসেছেন রক্ত দিতে”।

কলকাতা থেকে প্রকাশিত ‘বর্তমান পত্রিকা’ তাদের অনলাইন সংস্করণে  “মেগান মার্কেলের বিয়েতে কি তাঁর বাবা উপস্থিত থাকবেন? চলছে জল্পনা” শীর্ষক একটি খবর প্রকাশ করেছে। পত্রিকাটি লিখেছে,

“শনিবার উইন্ডসর ক্যাসেলে যুবরাজ হ্যারির সঙ্গে পরিণয় সূত্রে আবদ্ধ হবেন প্রাক্তন অভিনেত্রী মেগান মার্কেল। কিন্তু, এই রাজকীয় বিয়ের অনুষ্ঠানে কি মেগাল মার্কেলের বাবা টমাস মার্কেল (৭৩) উপস্থিত থাকবেন? মেক্সিকোর বাসিন্দা হলিউডের অবসরপ্রাপ্ত ‘লাইটিং ইঞ্জিনিয়ার’ টমাস মার্কেল মেয়ের অস্বস্তি এড়াতেই এই বিয়ের আসরে অনুপস্থিত থাকবেন বলে শোনা যাচ্ছে। তিনি নাকি প্রাক্তন স্ত্রী মেগান মার্কেলের মা ডোরিয়া র্যা গল্যান্ডকে দায়িত্ব দিয়েছেন, পরিবারের তরফে এই বিয়ের কাজ সম্পন্ন করতে। লস এ্যাঞ্জেলসের বাসিন্দা র্যা গল্যান্ড পরিচিতি একজন সমাজকর্মী এবং যোগ শিক্ষিকা হিসেবেই। শোনা গিয়েছিল, এই সপ্তাহেই প্রাক্তন স্ত্রী র্যা গল্যান্ড, রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ, যুবরাজ চার্লস ও ক্যামিলার সঙ্গে চা চক্রে মিলিত হওয়ার কথা ছিল টমাস মার্কেলের। কিন্তু টমাস জানিয়েছেন, অত্যধিক স্ট্রেসের কারণে ছ’দিন আগে তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হন। এখনও বুকে ব্যথা অনুভব করছেন। তাই মেডিক্যাল চেকআপের জন্য বিয়ের সময়ে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হবে। তাঁর অবর্তমানে পুরো বিষয়টি পরিচালনা করবেন র্যা গল্যান্ড। মেয়ে মেগাল মার্কেলের সঙ্গে একই গাড়িতে তিনি উইন্ডসর ক্যাসেলের সেন্ট জর্জ চ্যাপেলে যাবেন। মেগাল মার্কেল আগেই বলেছেন, তাঁর জীবনে বাবার ভূমিকা অপরিসীম। বাবার জন্যই তিনি এই জায়গায় পৌঁছতে পেরেছেন। তাই, টমাস মার্কেল শেষপর্যন্ত কী করেন, তা নিয়ে ব্রিটিশ মিডিয়ায় জোর জল্পনা চলছে। কেনসিংটন প্যালেসের তরফে অবশ্য এক বিবৃতিতে অনুরোধ করা হয়েছে বর্তমান পরিস্থিতিতে মেগান মার্কেলের প্রতি সহানুভূতিশীল থাকার জন্যই।”

 

বাংলাদেশ থেকে প্রকাশিত ‘দৈনিক ইত্তেফাক’ পত্রিকা তাদের অনলাইন সংস্করণে “হাওয়াইয়ে ফের অগ্ন্যুৎপাত, রেড এলার্ট জারি” শীর্ষকে একটি খবর প্রকাশ করেছে। পত্রিকাটি লিখেছে,

“যুক্তরাষ্ট্রের হাওয়াইয়ের কিলাউয়েয়া আগ্নেয়গিরিতে মঙ্গলবার ফের অগ্ন্যুৎপাত শুরু হয়েছে। এতে জ্বালামুখ দিয়ে ব্যাপক ছাইভস্ম আকাশের দিকে অনেক উঁচুতে উঠে তারপর ছড়িয়ে পড়ছে। ছাইভস্ম চারদিকে ছড়িয়ে পড়ায় কর্তৃপক্ষ বাতাসের দূষণ পরিমাপ বিষয়ক সতর্কতা জারী করেছে। এছাড়াও একটি বড় ধরনের অগ্ন্যুৎপাতের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

হাওয়াইয়ান কাউন্টি সিভিল ডিফেন্স এজেন্সি জানিয়েছে, কিলাউয়েয়ার একটি জ্বালামুখ দিয়ে পাথর ও গ্যাসের ধোঁয়া আকাশের দিকে উঠে আবার দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে পড়ছে। কর্তৃপক্ষ বিমান চলাচলের জন্য রেড এলার্ট জারি করে জানিয়েছে, ছাইমেঘ ১০ থেকে ১২ ফুট উঁচুতে উঠে ছড়িয়ে পড়ছে। আগ্নেয়গিরির আশপাশের বাসিন্দাদের শ্বাসকষ্ট হতে পারে বলে সতর্ক করে কর্তৃপক্ষ মানুষকে খোলা জায়গা এড়িয়ে চলতে এবং সাবধানে গাড়ি চালাতে অনুরোধ করেছে।

বিগ আইল্যান্ডে নতুন একটি ফাটল দিয়ে এই অগ্ন্যুৎপাত শুরু হয়েছে। সেখানেই জ্বালামুখটি অবস্থিত। এই নিয়ে ৩ মে থেকে মোট ২০টি লাভা নির্গমনকারী ফাটল সৃষ্টি হল। এখন পর্যন্ত লাভায় প্রায় ৪০টি বাড়ি ও অন্যান্য ভবন ধ্বংস হয়েছে। বিগ আইল্যান্ডের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে আগ্নেয়গিরিটি অবস্থিত। কিলাউয়েয়া বিশ্বের সবচেয়ে সক্রিয় আগ্নেয়গিরির একটি।

 

বাংলাদেশ থেকে প্রকাশিত ‘কালের কন্ঠ’ পত্রিকা “সৌদির বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ৪” শীর্ষকে একটি খবর প্রকাশ করেছে। পত্রিকাটি লিখেছে,

“সৌদি আরবের এক ইঞ্জিন বিশিষ্ট একটি হালকা বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। গতকাল দেশটির তাবুক অঞ্চলে এই দুর্ঘটনায় ৪ জন নিহত হয়েছে।

সৌদির এভিয়েশন ইনভেস্টিগেশন ব্যুরো (এআইবি)এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

এআইবি জানায়, বিমানটি ছিল সৌদি বন্য প্রাণী সংরক্ষণ অধিদপ্তরের।

সংস্থাটি জানিয়েছে, বিমানটি তাবুকের এলাকার ‘বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ এলাকা’তে বিধ্বস্ত হয়। বিমানের সকল যাত্রী ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছে। দুর্ঘটনার কারণ তদন্তে একটি দলকে দুর্ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে।”