আজকের সংবাদপত্র থেকে

For Sharing

আজ পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা এবং বাংলাদেশের ঢাকা থেকে প্রকাশিত বাংলা সংবাদপত্রগুলিতে ভিন্ন ভিন্ন বিষয়  প্রাধান্য পেয়েছে।

কলকাতা থেকে প্রকাশিত ‘আনন্দবাজার’ পত্রিকা’ “ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডেও রক্ষা মূল কাঠামোর, মাকরঁর প্রতিশ্রুতি, ‘ফের গড়ে তুলব নোত্র দাম!” শীর্ষকে একটি খবর প্রকাশ করেছে। পত্রিকাটি লিখেছে,

 “ভয়াবহ আগুনে প্যারিসের নোত্র দাম গির্জার একাংশ ভস্মীভূত হলেও মূল কাঠামো বাঁচানো সম্ভব হয়েছে।  আর তাতেই স্বস্তির নিশ্বাস ফেলেছেন খোদ ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমান্যুয়েল ম্যাকরঁ থেকে সমস্ত প্যারিসবাসী। ম্যাকরঁ সাংবাদিকদের বলেন, “একটা বিপর্যয় এড়ানো সম্ভব হল।

সাড়ে আটশো বছরের পুরনো মধ্যযুগীয় এই স্থাপত্যে আগুন লাগে সোমবার বিকেলে। দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে সেই আগুন। প্রায় আট ঘণ্টার চেষ্টায় স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ভোর ৩টে নাগাদ আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।  যদিও তত ক্ষণে আগুনের গ্রাসে ভেঙে পড়ে গির্জার একাংশ।

প্যারিস পুলিশ জানিয়েছে, আগুন নেভাতে গিয়ে এক দমকল কর্মী গুরুতর আহত হন। দমকলকর্মীরা প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে বেল টাওয়ার ও গির্জার বাইরের অংশটি আগুনের হাত থেকে বাঁচাতে পেরেছেন। নোত্র দামের পুনর্নির্মাণেরও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট। মধ্যযুগীয় এই স্থাপত্যের পুনর্নির্মাণের জন্য প্রচার চালানো হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। বলেন, “আমরা সকলে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে এই স্থাপত্যকে ফের গড়ে তুলব।”

অন্য দিকে, ফরাসি ধনকুবের ফ্রাঁসোয়া অরিঁ পিয়ন্ত নোত্র দামের পুনর্নির্মাণে ১০০ মিলিয়ন ইউরো (৭৮৫ কোটি ২৬ লক্ষ ৫২ হাজার টাকা) দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

প্যারিসের ডেপুটি মেয়র ইমান্যুয়েল গ্রেগয়ার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, গির্জার ভিতরে থাকা গুরুত্বপূর্ণ ঐতিহাসিক জিনিসগুলোকে তত্পরতার সঙ্গে সরিয়ে নেওয়া হয়। ফলে বেশ কিছু এমন গুরুত্বপূর্ণ জিনিসকে বাঁচানো সম্ভব হয়েছে। ক্ষতির পরিমাণ কত তা খতিয়ে দেখার জন্য বিভিন্ন দল কাজ করছে।”

 

কলকাতা থেকে প্রকাশিত ‘বর্তমান’ পত্রিকা’ “বিশ্বের প্রথম উভচর ড্রোন তৈরি করেছে, দাবি চীনের” শীর্ষক খবরটি ছেপেছে। পত্রিকাটি লিখেছে,

“বিশ্বের প্রথম সশস্ত্র উভচর ড্রোন জাহাজ তৈরি করেছে বলে সোমবার দাবি করল চীন। এই ড্রোন জলের পাশাপাশি প্রয়োজনে সড়কেও চলাচল করতে পারবে বলে জানানো হয়েছে। গ্লোবাল টাইমসের প্রতিবেদন অনুযায়ী, চীনের সরকারি সংস্থা সিএসআইসির তৈরি এই এই ড্রোনের নাম দেওয়া হয়েছে মেরিন লিজার্ড। সমস্ত রকম পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে লিজার্ড ৮ এপ্রিল কারখানা ছেড়েছে। তবে মেরিন লিজার্ডকে সেনার হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে কি না, তা জানানো হয়নি। এই ড্রোনের কাজের পরিধি এক হাজার ২০০ কিলোমিটার। স্যাটেলাইটের মাধ্যমে এই ড্রোনকে নিয়ন্ত্রণ করা যায়।
জাহাজ অবস্থায় ১২ মিটার লম্বা লিজার্ডটি ডিজেল চালিত হাইড্রোজেটের মতো আচরণ করে। লুকিয়ে থাকা অবস্থায় লিজার্ডের সর্বোচ্চ গতি হতে পারে ৫০ নটস। ভূমিতে এলেই ড্রোনের পেট থেকে বেরিয়ে আসে চারটি পা। সর্বোচ্চ ২০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টায় এগতে পারে লিজার্ড। তবে ডাঙায় এর গতি আরও বাড়ানো যেতে পারে বলে বিশেষজ্ঞরা দাবি করেছেন। মেরিন লিজার্ডে ইলেক্ট্রো অপটিক্যাল ব্যবস্থা এবং একটি র্যা ডার রয়েছে। দু’টি মেশিন গান, জাহাজ এবং বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে বলে এক আধিকারিক জানিয়েছেন। যে কোনও জায়গা থেকে উলম্বভাবে উড়তে পারে মেরিন লিজার্ড।”

 

বাংলাদেশের ঢাকা থেকে প্রকাশিত বাংলা সংবাদপত্র’ দৈনিক ইত্তেফাক’ তার অন লাইন সংস্করণে “প্রথমবারের মত অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে পুতিন-কিম বৈঠক” শীর্ষকে একটি  খবর প্রকাশ করেছে। পত্রিকাটি লিখেছে,

“রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের মধ্যে প্রথম বারের মত বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ক্রেমলিনের পক্ষ থেকে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

ক্রেমলিনের মুখপাত্র দ্বিমিত্রি পেসকভ সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, আমি নিশ্চিত করে বলতে পারি বৈঠকের প্রস্তুতি চলছে।আমরা দীর্ঘ সময় ধরে এ বৈঠকের জন্য আলোচনা করে আসছি।

তিনি আরো বলেন, শিগগিরই বৈঠকের সময়সূচি ও বৈঠকের স্থান জানানো হবে।

অন্যদিকে দক্ষিণ কোরিয়ার ‘ইয়নহ্যাপ’ সংবাদ সংস্থা এক সূত্রের বরাত দিয়ে জানায়, এপ্রিলের শেষে পুতিন-কিমের বৈঠক হতে পারে।

গত ফেব্রুয়ারি মাসের শেষ দিকে ভিয়েতনামের হ্যানয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উনের বহুল আলোচিত বৈঠকটি কোন ধরণের চুক্তি ছাড়াই ব্যর্থ হয়। তথ্যসুত্র: সিনহুয়া, জাপান টাইমস।”

 

বাংলাদেশের ঢাকা থেকে প্রকাশিত বাংলা সংবাদপত্র ‘কালের কণ্ঠ’ তার অন  লাইন সংস্করণে “দেউলিয়া হচ্ছে পাকিস্তান?” শীর্ষকে একটি  খবর প্রকাশ করেছে। পত্রিকাটি লিখেছে,

“চরম আর্থিক সঙ্কটের মুখোমুখি পাকিস্তান। দেশটির অর্থনীতিতে দূর্যোগের ঘনঘটা। বিপুল ঋণে জর্জরিত পাকিস্তান। দেশটির বাজারে এখন পণ্যের অগ্নিমূল্য। অর্থনীতি প্রায় ভাঙনের মুখে।

এই পরিস্থিতি খুব তাড়াতাড়ি সামাল দিতে না পারলে শীঘ্রই দেউলিয়া ঘোষিত হতে পারে পাকিস্তান। এমনটাই মনে করছেন আর্থিক খাতের বিশ্লেষকরা।

ভারতীয় গণমাধ্যমের এক প্রতিবেদনে এমনটাই বলা হয়েছে।

জানা গেছে, ২০১৩-র নভেম্বর মাস থেকে এখনও পর্যন্ত ৯.৪১ শতাংশ মুদ্রাস্ফীতি হয়েছে পাকিস্তানে।

এদিকে, মুদ্রাস্ফীতি কমানোর জন্য পাকিস্তানের সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক ১০.৭৫ শতাংশ সুদের হার কমিয়ে দিয়েছে।

পাকিস্তানে দুধের দাম লিটার প্রতি ১২০ টাকা। খোলা বাজারে দাম আরও বেশি। সেখানে লিটার প্রতি দাম ১৮০ টাকা শুধু তাই নয়, সমস্ত সবজি, ফল, মুদিখানার জিনিস, পেট্রোল, জিজেল সবকিছুর দামই আকাশছোঁয়া হয়ে উঠেছে৷”