আজকের সংবাদপত্র থেকে

For Sharing

আজ পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা এবং বাংলাদেশের ঢাকা থেকে প্রকাশিত বাংলা সংবাদপত্রগুলিতে ভিন্ন ভিন্ন বিষয়  প্রাধান্য পেয়েছে।

কলকাতা থেকে প্রকাশিত ‘আনন্দবাজার পত্রিকা’ “বালুচিস্তানে জঙ্গি হামলা, বাস থেকে নামিয়ে ১৪ পাক সেনাকে গুলি করে হত্যা” শীর্ষকে একটি খবর প্রকাশ করেছে। পত্রিকাটি লিখেছে,

“পাকিস্তানের বালুচিস্তানে বাস থেকে নামিয়ে ১৪ জনকে গুলি করে হত্যা করল মুখোশধারী বন্দুকবাজরা। প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে, যে দলটি হামলা চালিয়েছে, তারা পাক সেনার পোশাক পরে ছিল। ঘটনার কড়া নিন্দা করেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী। ইমেলে বিবৃতি দিয়ে ঘটনার দায় স্বীকার করেছে বিচ্ছিন্নতাবাদী বালোচ গোষ্ঠীদের সশস্ত্র বাহিনীর জোট।

বৃহস্পতিবার ভোরে পাকিস্তানের করাচি থেকে বালুচিস্তানের গ্বাদরের দিকে যাচ্ছিল যাত্রীবোঝাই বাসটি। মাকরান কোস্টাল হাইওয়ে দিয়ে যাওয়ার সময় ওরমারা শহরের কাছে বাসটিকে থামায় মুখোশধারী জঙ্গিরা। তাদের পরনে ছিল সেনার পোশাক। বাসটিকে থামিয়ে যাত্রীদের নামিয়ে এনে গুলি করে তারা।

বালোচ বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সশস্ত্র সংগঠন ‘বালোচ রাজি আজোই সঙ্গার’ তাদের বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘‘বেছে বেছে পাক সেনা এবং পাক উপকূলরক্ষী বাহিনীর সদস্যদের আমরা হত্যা করেছি। পরিচয়পত্র দেখে নিশ্চিত হওয়ার পরেই হত্যা করা হয়েছে।’’

পাক স্বরাষ্ট্রসচিব হায়দর আলি সংবাদসংস্থাকে জানিয়েছেন, ‘‘হামলাকারীরা সংখ্যায় ছিল প্রায় দু’ডজন। ওরা প্যারামিলিটারি ফ্রন্টিয়ার কোরের-এর পোশাক পরেছিল। মৃতেরা সবাই পাক নাগরিক। এখনও পর্যন্ত জানতে পেরেছি, মৃতদের মধ্যে এক জন পাক সেনা এবং এক জন পাক উপকূলরক্ষী বাহিনীর সদস্য।’’

গ্বাদর শহরের স্বাস্থ্যকেন্দ্রের চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, ‘‘বুলেটের আঘাতেই সকলের মৃত্যু হয়েছে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মাথায় গুলি করা হয়েছে।’’

পাক সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, বন্দুকধারী হামলাবাজদের ধরতে তদন্ত শুরু হয়েছে। যদিও হামলার পরই তারা ঘটনাস্থল ছেড়ে পালায় বলে জানিয়েছে পাক সরকার। বিবৃতি দিয়ে ঘটনার কড়া নিন্দা করেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।”

কলকাতা থেকে প্রকাশিত ‘বর্তমান’ পত্রিকা’ “মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি ঘোষণা করা নিয়ে ২৩ এপ্রিল পর্যন্ত কোনও সময়সীমা দেয়নি রাষ্ট্রসঙ্ঘ, দাবি চীনের” শীর্ষক খবরটি ছেপেছে। পত্রিকাটি লিখেছে,

“জঙ্গিগোষ্ঠী জয়েশ-ই-মহম্মদের প্রধান মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি তকমা দিতে মরিয়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও ফ্রান্স। কিন্তু চীনের বাধায় রাষ্ট্রসঙ্ঘে এই সংক্রান্ত প্রস্তাব পাশ হয়নি। পদ্ধতিগত কারণ দর্শিয়ে পাকিস্তানের মদতপুষ্ট জঙ্গিনেতা মাসুদ আজহারের উপর আন্তর্জাতিক জঙ্গি তকমা লাগতে বাধা দিয়েছে চীন। চলতি মাসের ২৩ তারিখের মধ্যে চীনকে এই বাধা প্রত্যাহারের জন্য চরম সময়সীমা দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও ফ্রান্স। যদিও বুধবার বেজিংয়ের তরফে এসংক্রান্ত যাবতীয় দাবি উড়িয়ে দেওয়া হয়। যদিও বিতর্কিত এই বিষয়টি নিয়ে খুব শীঘ্রই সমাধানসূত্রে পৌঁছনো যাবে বলে দাবি করেছে চীন।
পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার পরেই জয়েশ-ই-মহম্মদ প্রধান মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি হিসাবে ঘোষণা করার দাবি তোলে ভারত। দিল্লির পাশে দাঁড়িয়ে এই ইস্যুতে সরব হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও ফ্রান্স। রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে এই প্রস্তাব তোলা হলেও চীনের বাধায় এখনও পর্যন্ত মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি হিসেবে ঘোষণা করা সম্ভব হয়নি। পদ্ধতিগত কারণ উল্লেখ করে চীন বাধা দিলেও মাসুদ আজহারকে কালো তালিকাভুক্ত করার জন্য রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে প্রস্তাব আনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু সেই প্রস্তাবেরও বিরোধিতা করে চীন। এরপরেই পদ্ধতিগত বাধা সরানোর জন্য চীনকে ২৩ এপ্রিল পর্যন্ত সময়সীমা দেয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও ফ্রান্স। যদিও এর কোনও সারবত্তা নেই বলে দাবি করেন চীনের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র লু কাং। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, ‘যে সূত্র থেকে আপনারা এই খবর পেয়েছেন, তা আরও একবার যাচাই করে নেওয়া প্রয়োজন। কারণ চীনের অবস্থান অত্যন্ত স্পষ্ট। পারস্পরিক সহযোগিতার মধ্যে দিয়েই এই বিষয়টির সমাধান হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আজহারের বিষয়টি নিয়ে চীনের কোনও অবস্থান বদল হয়নি। সংশ্লিষ্ট দেশগুলির সঙ্গে এনিয়ে আমাদের আলোচনা চলছে। বিষয়টি সমাধানের পথেই এগচ্ছে।।”

 

বাংলাদেশের ঢাকা থেকে প্রকাশিত বাংলা সংবাদপত্র’ দৈনিক ইত্তেফাক’ তার অন লাইন সংস্করণে “তাইওয়ানে শক্তিশালী ভূমিকম্প” শীর্ষকে একটি  খবর প্রকাশ করেছে। পত্রিকাটি লিখেছে,

“তাইওয়ানে শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। তাইওয়ানের পূর্বাঞ্চলীয় হুয়ালিয়েন কাউন্টির ভূপৃষ্ঠের ১৯ কিলোমিটার গভীরে বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় বেলা ১টা ১মিনিটে ভূমিকম্পটি আঘাত হানে।

মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা জানায়, ভূমিকম্পে রাজধানী তাইপেতে উঁচু বিভিন্ন ভবন জোরে কেঁপে ওঠে। রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ছিল ৬.০। এতে বিভিন্ন ভবন কেঁপে ওঠে এবং যানবাহন চলাচল বিঘ্নিত হয়। তবে ভূমিকম্পে তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

এদিকে তাইওয়ানের পূর্বাঞ্চলীয় ইলান কাউন্টিতে ভূমিকম্পে আতংকিত হয়ে পড়া অনেক শিক্ষার্থী তাদের শ্রেণিকক্ষ থেকে দ্রুত বেরিয়ে যায়। অফিস-বাসাবাড়ি থেকে মানুষ খোলা জায়গায় আশ্রয় নেন।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, ভূমিকম্পটি পুরো দ্বীপরাষ্ট্রে অনুভূত হয়। ভূমিকম্পের ফলে সৃষ্ট পাথর ধসের কারণে ইলান ও হুয়ালিয়েনকে সংযুক্ত করা একটি মহাসড়ক বন্ধ করে দেয়া হয়।”

 

বাংলাদেশের ঢাকা থেকে প্রকাশিত বাংলা সংবাদপত্র ‘কালের কণ্ঠ’ তার অন  লাইন সংস্করণে “গ্রেপ্তারকালে পেরুর সাবেক প্রেসিডেন্টের আত্মহত্যা” শীর্ষকে একটি  খবর প্রকাশ করেছে। পত্রিকাটি লিখেছে,
“পেরুর সাবেক প্রেসিডেন্ট অ্যালান গার্সিয়া আত্মহত্যা করেছেন। ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে তদন্ত চলাকালে পুলিশ থাকে গ্রেপ্তার করতে যায়। এ সময় গ্রেপ্তার এড়াতে নিজের মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করেন তিনি।

অ্যালান গার্সিয়াকে স্থানীয় সময়  ৬টা ৪৫ মিনিটে রাজধানী লিমার হাসপাতালে নেওয়া হয়। পেরুর বর্তমান প্রেসিডেন্ট মার্টিন ভিজকারা অ্যালান গার্সিয়ার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। সর্বশেষ প্রাপ্ত তথ্য বলছে, হাসপাতালের সামনে গার্সিয়ার সমর্থকদের প্রচুর ভীড় হয়েছে।

পেরুর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশ গার্সিয়ার বাড়িতে যাওয়ার পর তিনি একটি ফোন করার কথা বলে ভেতরে গিয়ে দরজা আটকে দেন। কয়েক মিনিট পর গুলির শব্দ শুনতে পায় পুলিশ। এরপর পুলিশ দরজা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করে। এ সময় তার মাথায় গুলির চিহ্ন ছিল।

অভিযোগ, দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্ব পালনের সময় একটি মেট্রো রেললাইন নির্মাণ প্রকল্পে কাজের সুযোগ দিয়ে ব্রাজিলের ‘ওদেব্রাচ’ কোম্পানি থেকে অ্যালান গার্সিয়া ঘুষ নেন।

প্রসঙ্গত, অ্যালান গার্সিয়া  ১৯৮৫ সাল থেকে ১৯৯০ সাল এবং ২০০৬ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত পেরুর প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করেন৷”