ওসাকায় BRICS নেতাদের ঘরোয়া বৈঠক

For Sharing

ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকার শীর্ষ স্থানীয় নেতাগণ জাপানের ওসাকায় G20 শীর্ষ-সম্মেলনের পাশাপাশি বৈঠকে বসেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, ব্রাজিলের রাষ্ট্রপতি জায়ের বোলসোনারো, রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন, চীনের রাষ্ট্রপতি শি চিনফিং এবং দক্ষিণ আফ্রিকার রাষ্ট্রপতি সিরিল রামাফোসা  G20 সভাপতিত্ব পাওয়ার জন্য জাপানকে অভিনন্দন জানান এবং বাণিজ্য, বিজ্ঞান, প্রযুক্তি ও উদ্ভাবন, পরিকাঠামো, জলবায়ু পরিবর্তন, বিশ্বজনীন স্বাস্থ্য সুবিধা প্রদান ও দীর্ঘস্থায়ী উন্নয়নের বিষয়কে জাপান অগ্রাধিকারমূলক ক্ষেত্র হিসেবে বেছে নেওয়ায় তার প্রশংসা করেন।

BRICS নেতারা মনে করছেন যে বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক বৃদ্ধি মোটের ওপর স্থিতিশীল রয়েছে এবং সাধারণভাবে এই বছরের শেষের দিকে এবং ২০২০ সালে পরিস্থিতি কিছুটা ভালো হবে, কিন্তু আপত্তিকর বাণিজ্য ও ভূ-রাজনৈতিক উত্তেজনা, পণ্য মূল্যের অস্থিরতা, অসাম্য ও অপর্যাপ্ত বৃদ্ধি এবং কঠোর আর্থিক পরিস্থিতির সঙ্গে বৃদ্ধির হার মজবুত করার বিষয়টি খুবই অনিশ্চিত ও ঝুঁকিপূর্ণ। 

BRICS দেশগুলি গত এক দশকে বিশ্বব্যাপী বৃদ্ধির প্রধান চালিকা শক্তি এবং বর্তমানে বিশ্বের এক তৃতীয়াংশের কছাকাছি প্রতিনিধিত্ব করে। বলা হচ্ছে যে, ২০৩০ সালের মধ্যে  BRICS দেশগুলি বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক বৃদ্ধির অর্ধেকেরও বেশি অংশ নেবে। নিরবচ্ছিন্নভাবে পরিকাঠামো সংস্কার চালিয়ে যাওয়ার ফলে BRICS-এর বৃদ্ধির সম্ভাবনাকে বাড়িয়ে দেবে। BRICS দেশগুলির মধ্যে ভারসাম্যযুক্ত বাণিজ্য সম্প্রসারণ আন্তর্জাতিক বাণিজ্য প্রবাহকে আরও মজবুত করবে।

BRICS নেতৃত্ব খোলা বাজারের; মজবুত অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা; আর্থিক স্থিতিশীলতা; সুপরিকল্পিত ও সুসমন্বয়মূলক আর্থ-সামাজিক নীতিমালা, সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বের মধ্যে সহযোগিতার বিষয়টির গুরুত্ব স্বীকার করেছে। BRICS স্বচ্ছ, বৈষম্যরহিত, উন্মুক্ত, অবাধ ও সমন্বিত আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের প্রতি অঙ্গীকারবদ্ধ। সংরক্ষণবাদ ও একতরফাবাদের আত্মপ্রকাশ আদতে বিশ্ব বাণিজ্য সংগঠনের আদর্শের বিরুদ্ধাচারণ করছে। নেতারা বহুপাক্ষিকতাবাদ ও আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি তাদের অঙ্গীকারের কথা বারে বারে বলেছেন এবং বিশ্ব বাণিজ্য সংগঠনের নেতৃত্বে নিয়ম-ভিত্তিক এক বহুপাক্ষিক বাণিজ্যিক ব্যবস্থাপনাকে তারা পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছেন। কিন্তু বিশ্ব বাণিজ্য সংগঠনের যে কোনো সংস্কারের ক্ষেত্রে তার মূল আদর্শটিকে ও মৌলিক নীতিগুলিকে অক্ষুণ্ণ রেখেই করতে হবে। সমঝোতা আলোচনা হতে হবে ভারসাম্যমূলক এবং তার আলোচনা হতে হবে খোলামেলা, স্বচ্ছ ও সর্বাত্মক উপায়ে।

 BRICS   পরিকাঠামো ক্ষেত্রে ও  দীর্ঘস্থায়ী উন্নয়নে নতুন উন্নয়ন ব্যাঙ্ক বা  NDBর ভূমিকার প্রশংসা করেছে এবং এক মজবুত, ভারসাম্যযুক্ত ও উচ্চ গুণমান সম্পন্ন প্রকল্প তৈরি করতে নিরবচ্ছিন্নভাবে প্রয়াস চালানোর ওপর জোর দিয়েছে। BRICS গোষ্ঠীর নেতৃত্ব সদস্য দেশগুলিতে গুরুত্বপূর্ণ পরিকাঠামো ক্ষেত্রে বকেয়া বিনিয়োগ মিটিয়ে ফেলার গুরুত্বের ওপর জোর দিয়েছেন। NDBকে আরও মজবুত করা হবে বিভিন্ন আঞ্চলিক দফতর তৈরির মাধ্যমে। BRICS তার সদস্য দেশগুলির অভ্যন্তরীণ মুদ্রায় সম্পদ ব্যবহারের এবং চীনে শুরু হওয়া এবং দক্ষিণ আফ্রিকা ও রাশিয়ায় আসন্ন বন্ড কর্মসূচী নিয়ে NDBর অঙ্গীকারকে স্বাগত জানিয়েছে।

BRICS নেতারা সবধরণের এবং যে কোনো দেশের ওপর সন্ত্রাসবাদী হামলার তীব্র নিন্দা করেছেন। তাঁরা কঠোর আন্তর্জাতিক আইনের ভিত্তিতে রাষ্ট্র সঙ্ঘের মাধ্যমে একটি সন্ত্রাসবাদ দমনের বিষয়ে সর্বাত্মক দৃষ্টিভঙ্গী জন্য সর্বোতোভাবে প্রয়াস চালানোর আহ্বান জানিয়েছেন। তাঁরা পুনর্ব্যক্ত করেছেন যে প্রতিটি দেশেরই এটি এক দায়িত্ব যে সন্ত্রাসবাদী নেটওয়ার্কগুলিকে অর্থপ্রদান বন্ধ করা ও কোনো দেশের ভূখন্ড থেকে সেই সব সন্ত্রাসবাদী কাজকর্ম চলতে না দেওয়ার।

BRICS দেশগুলি স্বচ্ছ ও অধিক নমনীয় দক্ষ জ্বালানী ব্যবস্থাপনার দিশায় এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে সহযোগিতার গুরুত্বকে স্বীকার করেছে যা জ্বালানি সুরক্ষা, জ্বালানী প্রাপ্তি, স্থায়িত্ব ও সামর্থ্য সুনিশ্চিত করার সময় গ্রিন হাউস গ্যাস নির্গমন কমিয়ে বৃদ্ধি-হার বাড়াতে সক্ষম। বিভিন্ন জাতীয় পরিস্থিতিতে  রাষ্ট্র সঙ্ঘে গৃহীত নীতির ভিত্তিতেই প্যারিস চুক্তির সম্পূর্ণ বাস্তবায়নে BRICS-এর সমস্ত দেশই অঙ্গীকারবদ্ধ। এই গোষ্ঠী বলেছে যে, তারা এক ইতিবাচক ফলাফলের জন্য এই বছরের সেপ্টেম্বর মাসে আয়োজিত হতে চলা রাষ্ট্র সঙ্ঘ জলবায়ু শীর্ষ সম্মেলনের দিকে তাকিয়ে রয়েছে।

এই বছরের বার্ষিক BRICS সম্মেলন ব্রাজিলের ব্রাসিলিয়ায় অনুষ্ঠীত হবে। এই বছরের শীর্ষ সম্মেলনের বিষয় হল “এক উদ্ভাবনী ভবিষ্যতের জন্য আর্থিক বৃদ্ধি”। BRICS গোষ্ঠী স্বীকার করে যে উন্নয়নের মূল চাবিকাঠি হল উদ্ভাবন। নেতারা  ডিজিটালকরণ ও প্রযুক্তির ব্যবহারের বিষয়ে তাঁদের অঙ্গীকারের কথা পুনরায় জানিয়েছেন। ইন্টারনেটের মাধ্যমে দারিদ্র্য দূরীকরণ ও শিল্প ক্ষেত্রের ডিজিটাল রূপান্তরণের বিষয়ে BRICS যৌথ প্রয়াসকে উৎসাহ প্রদান করছে। BRICS-এর নেতৃত্ব সদস্য দেশগুলি নতুন শিল্প বিপ্লবে BRICS অংশীদারিত্ব,  iBRICS নেটওয়ার্ক, ভবিষ্যৎ নেটওয়ার্কের বিষয়ে BRICS প্রতিষ্ঠান এবং যুব বিজ্ঞানী মঞ্চ গঠন সহ সদস্য দেশগুলির মধ্যে বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, উদ্ভাবন ও শিল্পদ্যোগে সহযোগিতার গুরুত্বের ওপরে জোর দিয়েছেন।

[মূল রচনা- পদম সিং]