জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখের জন্য প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নী রুপরেখা

For Sharing

প্রধানমন্ত্রী দেশবাসীর উদ্দেশে এক ভাষণে ভারতীয় সংবিধানের ধারা ৩৭০ বিলোপের কারণ সম্পর্কে বিস্তারিত অবহিত করেন। এই ধারার ফলে পূর্বতন জম্মু ও কাশ্মীর রাজ্যকে বিশেষ মর্যাদা দেওয়া হয়েছিল। এসপ্তাহে সংসদের উভয় সভা ধারা ৩৭০ বিলোপের পক্ষে ভোট দেয়। জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখ নামে দুটি কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল সৃষ্টি হয়।

ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী বলেন কয়েক দশক ধরে জঙ্গী কার্যকলাপ, বিচ্ছিন্নতাবাদ, বংশ পরম্পরার রাজনীতি এবং দুর্নীতি অব্যাহত রয়েছে। তিনি বলেন ৩৭০ থেকে মুক্তি লাভ এক বাস্তবতা। আন্তঃসীমান্ত সন্ত্রাসবাদীরা দেশের ক্ষতি করতে  এবং  এই ভূস্বর্গে হিংসার প্ররোচনা দিতে অনুচ্ছেদের অপব্যবহার করেছে। গত তিন দশকে ৪২,০০০ ভারতীয়  নাগরিকের মৃত্যুর জন্য পাকিস্তান দায়ী। অনুচ্ছেদ ৩৭০এর ফলে দেশের আইন কার্যকরভাবে জম্মু ও কাশ্মীরে বলবত হতে পারতো না। সমাজের তরুণ, মহিলা এবং গরীব শ্রেণী পূর্বতন এই রাজ্যে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছিল। যুব সম্প্রদায় নানান সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছে এবং তাদের সম্ভাবনাকে বাস্তবায়িত করতে পারে নি। তিনি মনে করেন অনুচ্ছেদ ৩৭০এর বিলোপের ফলে ড. ভীমরাও আম্বেদকার, সর্দার বল্লবভাই প্যাটেল, ড. শ্যামা প্রসাদ মুখার্জী এবং শ্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর স্বপ্ন খুব শীঘ্রই সফল হবে। এই অঞ্চল দুটি ভারতের অন্যান্য রাজ্যের মত সমস্ত অধিকার এবং সুযোগ সুবিধা পাবে।

প্রধানমন্ত্রী নতুন দুটি কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলের উন্নয়নের রুপরেখা ব্যাখ্যা করেন। শ্রী মোদি বলেন জম্মু ও কাশ্মীরে ক্রমবর্ধমান সন্ত্রাসবাদের জন্য ধারা ৩৭০ই দায়ী। তিনি জানান এই ধারা বিলোপের ফলে নতুন এই কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল দুটিতে নতুন যুগের সূত্রপাত হবে। প্রধানমন্ত্রী জোর দিয়ে বলেন উত্তম ও স্বচ্ছ প্রশাসন হবে এই  কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল দুটির প্রশাসনের চাবিকাঠি।

প্রধানমন্ত্রী এখানকার উন্নয়নের জন্য একাধিক নতুন ব্যবস্থার কথা ঘোষণা করেন। তিনি বলেন খুব শীঘ্রই এই দুটি কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলের দেড়কোটি মানুষ উন্নয়নের সুফল পেতে শুরু করবে। তিনি দেশবাসী এবং বিশেষ করে এই  অঞ্চলের জনগণকে বলেন ভারত সরকার সর্বদাই তাদের সঙ্গে রয়েছে। শ্রী মোদি বলেন এক সময় কাশ্মীর তার অপূর্ব প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্য ভারতের চলচিত্র শুটিং এর স্থান বলে পরিচিত ছিল। তিনি চলচিত্র শিল্পের কাছে কাশ্মীরে শুটিং এর জন্য ব্যবস্থা নিতে বলেন যাতে সারা বিশ্বের লক্ষ লক্ষ মানুষ কাশ্মীরের নৈস্বর্গিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারে।

নতুন জম্মু ও কাশ্মীর কেন্দ্র শাসিত অঞ্চনের উন্নয়নের জন্য তরুণ সম্প্রদায় এবং মহিলাদের এগিয়ে আসতে বলেন। তিনি তাদের আসন্ন বিধান সভা নির্বাচনে যোগ দিতে বলেন যাতে তারা উন্নয়নের অংশীদার হতে পারে। প্রধানমন্ত্রী মোদি আশ্বাস দেন যে খুব শীঘ্রই কাশ্মীরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে। তিনি বলেন, মতপার্থক্য গণতন্ত্রের অংগ এবং তিনি  জাতীয় স্বার্থকে সবার উপরে স্থান দেবার জন্য সকলের প্রতি আবেদন জানান।

ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী বলেন যে লাদাখ কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলের মর্যাদা পাওয়ায় লাদাখের জনগন খুবই আনন্দিত। লাদাখের উন্নয়নী প্রকল্পের প্রতি দৃষ্টি দেওয়া কেন্দ্র সরকারের দায়িত্ব। তিনি বলেন সড়ক, বিমানবন্দর, রেললাইন, হাসপাতাল স্কুল ইত্যাদির আধুনিকীকরণের প্রতি জোর দেওয়া হবে। তিনি জানান, পর্যটন এবং সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে কর্মসংস্থানের সুযোগ অনেক বৃদ্ধি পাবে। খুব শীঘ্রই জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখ উন্নত কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলে পরিণত হবে।

৩৮ মিনিটের ভাষণে ভারতের প্রধানমন্ত্রী  কেবলমাত্র উন্নয়নের কথা বলেন, পাকিস্তানের উক্তির বিষয়ে তিনি কিছু বলেন নি। ভারতের পশ্চিমের প্রতিবেশী, কাশ্মীর প্রশ্নকে আন্তর্জাতিক রূপ দেবার চেষ্টা করছে তবে এবার বিশ্ব সম্প্রদায় ইসলামাবাদের চালাকীতে ক্লান্ত হয়ে পড়েছে।

প্রধানমন্ত্রী ইমরানের উচিত ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী  কাছে থেকে উন্নয়নী কর্মসূচি বাস্তবায়নের বিষয়ে শিক্ষা লাভ করা। পাকিস্তানের জনগণ এ থেকে নিঃসন্দেহে উপকৃত হবে। (মূল রচনাঃ পদম সিং)