ঋণের প্রবাহ বৃদ্ধির লক্ষ্যে রেপো রেট ও পরিবর্তনশীল সূদের হারের মধ্যে সংগতিসাধন।

For Sharing

রিজার্ভ ব্যাংক দেশের আর্থিক বাজারে ঋণের প্রবাহ বৃদ্ধির একটি অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যে  রেপো রেট ও পরিবর্তনশীল সূদের হার, অর্থাৎ ফ্লোটিং ইন্টারেস্ট রেটের মধ্যে সংগতি সাধন করল। এই সিদ্ধান্ত পয়লা অক্টোবর থেকে কার্যকর হবে। দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এই সিদ্ধান্তে গৃহ ও মোটর গাড়ী ঋণ গ্রহীতা ছাড়াও খুচরো ব্যবসাতে নিযুক্ত কারবারী, অতি ক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পোদ্যোগ-অর্থাৎ MSME ক্ষেত্র লাভবান হবে।

অভিজ্ঞতা থেকে দেখা গেছে, রেপো রেট, অর্থাৎ যে সূদের হারে কেন্দ্রীয় ব্যাংক বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলিকে ঋণ দেয়, তা হ্রাস করা হলেও বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলি সেই অনুযায়ী, ব্যক্তিগত ঋণ গ্রহীতা ছাড়াও খুচরো ব্যবসাতে নিযুক্ত কারবারী, ও MSME ক্ষেত্রকে দেওয়া তাদের ঋণের ওপর সুদের হার কম করতে অনিচ্ছুক থেকেছে। উদাহরণ স্বরূপ, এ বছর ফেব্রুয়ারী থেকে জুন পর্যন্ত সময়ে রিজার্ভ ব্যাংক তার দ্বিমাসিক আর্থিক নীতি পর্যালোচনা রিপোর্ট ঘোষণায় রেপো রেট মোট ০.৭৫ শতাংশ, অর্থাৎ ৭৫ বেসিস পয়েন্ট হ্রাস করলেও বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলি জনসাধারণকে দেওয়া নতুন ঋণের ওপর সূদের হার মাত্র ০.২৯ শতাংশ, অর্থাৎ ২৯ বেসিস পয়েন্ট কম করেছে।  আর এর ফলে উপভোক্তা ছাড়াও দেশের বাণিজ্য ও শিল্প মহল ধারাবাহিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এই  পরিস্থিতির পরিবর্তন ঘটাতেই রিজার্ভ ব্যাংকের এই সিদ্ধান্ত। বিশেষ করে বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক মন্দা পরিস্থিতি ও ভারতীয় অর্থব্যবস্থার ওপর তার প্রতিকূল প্রভাবের প্রেক্ষিতে দেশের আর্থিক বাজারকে ঘুরে দাঁড়াতে সাহায্য করতে রিজার্ভ ব্যাংক বেশ কিছুদিন ধরেই এই সিদ্ধান্ত গ্রহণের চিন্তাভাবনা করছিল। এ বছরে মে মাসে দেশের বৃহত্তম ব্যাংক-স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া-SBI, রিজার্ভ ব্যাংকের রেপো রেটের সঙ্গে সংগতি রেখে তার ব্যক্তিগত গ্রাহকদের সেভিংস ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ও বাণিজ্যিক ঋণের ওপর সূদের হার নির্ধারণের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করে।  এর পরেই অন্যান্য পাঁচটি ব্যাংক- সিন্ডিকেট ব্যাংক, ইউনিয়ন ব্যাংক, ইন্ডিয়ান ব্যাংক, ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া ও এলাহাবাদ ব্যাংক রেপো রেট ভিত্তিক তাদের সুদের হার ঘোষণা করে।

উল্লেখ করা যেতে পারে, বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলির মোট আর্থিক সম্পদে রিজার্ভ ব্যাংকের দেওয়া অতি স্বল্পকালীন ঋণের অবদান মাত্র এক শতাংশের মত। এই সম্পদের সিংহ ভাগের উৎস জনসাধারণের সেভিংস ব্যাংক অ্যাকাউন্টে জমানো অর্থ। এর প্রেক্ষিতে ব্যাংকগুলির বক্তব্য ছিল, কম সূদের হারে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে ঋণ দিতে হলে সেভিংস ব্যাংক অ্যাকাউন্টে সূদের হারও কম করতে হবে তাদের আর্থিক লোকসান এড়াতে। তবে তা করা হলে সাধারণ মানুষই সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হবে। বিষয়টিকে সামনে রেখেই রিজার্ভ ব্যাংক রেপো রেট ছাড়াও ভারত সরকারের ত্রৈমাসিক ও ষাণ্মাসিক ট্রেজারি বিলের ওপর আয়ের  সঙ্গে  সংগতি রেখে গৃহ ঋণ, মোটর গাড়ী ঋণ ও MSME ক্ষেত্রকে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলির দেওয়া ঋণের ওপর সূদের হার নির্ধারণের নির্দেশ জারি করে।

আর্থিক বিশেষজ্ঞ মহলের ধারণা, রিজার্ভ ব্যাংকের এই ঘোষণা অভ্যন্তরীণ আর্থিক বাজারে ঋণের প্রবাহ বৃদ্ধি ও আর্থিক কাজকর্মে গতি সঞ্চারের সহায়ক হবে। (মূল রচনাঃ- জি শ্রীনিবাসন )