করোনা ভাইরাসের মোকাবিলায় দেশ জুড়ে ২১ দিনের লকডাউন

For Sharing

সরকার করোনা ভাইরাসের মোকাবিলায় দেশ জুড়ে ২১ দিনের লকডাউনের ঘোষণা করেছে। এই ঘোষণার পর গতকাল মধ্য রাত থেকেই সড়ক, রেল এবং বিমান পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে। সারা দেশে জরুরী পরিষেবার জন্য মালবাহী পরিবহন ব্যবস্থা চালু থাকবে। ওষুধের দোকান, পেট্রোল পাম্প, মুদির দোকান,  দুধ এবং অনলাইন শপিং-এর মত অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সরবরাহ এই লকডাউনের আওতার বাইরে রাখা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি করোনা মোকাবিলায় দেশের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরিকাঠামো আরও মজবুত করতে ১৫০০০ কোটি টাকার কেন্দ্রীয় অনুদানের ঘোষণা করেছেন। এক সপ্তাহের মধ্যে জাতির উদ্দেশে দ্বিতীয় ভাষণে  প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভারত এবং প্রতিটি ভারতবাসীকে রক্ষা করতে বাড়ির বাইরে পা রাখার  সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হল। তিনি একটি পোস্টার দেখান যাতে লেখা ছিল- করোনা অর্থাৎ ‘ কোই রোড পর না নিকলে ( কেউ রাস্তায় বেরোবেন না)। শ্রী মোদি বলেন, দেশের প্রতিটি রাজ্য, কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল, জেলা, গ্রাম, মহল্লা এবং সড়কে লকডাউন কার্যকর করা হল। তিনি বলেন, এই লকডাউন ‘জনতা কার্ফু’ থেকেও অনেক বেশি কঠোর, এই লকডাউন অনেকটা কার্ফুর মত। নরেন্দ্র মোদি বলেন, এই লকডাউন দেশের প্রধানমন্ত্রী থেকে গ্রামের মানুষ সকলের জন্যই প্রযোজ্য। প্রধানমন্ত্রী বলেন,  এই ২১ দিন ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ তা না হলে দেশ ২১ বছর পিছিয়ে যাবে। আপনার পরিবার ২১ বছর পিছনে চলে যাবে। শ্রী মোদি বলেন, করোনা সঙ্কট  মোকাবিলায় এই কঠোর পদক্ষেপ অবশ্য প্রয়োজনীয়।