আরব-ভারত সহযোগিতা মঞ্চের বৈঠক

For Sharing

আরব-ভারত সহযোগিতা মঞ্চের পদস্থ আধিকারিকদের তৃতীয় বৈঠকটি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এই বৈঠকের  সহ-সভাপতিত্ব করেন পররাষ্ট্র মন্ত্রকের বাণিজ্যিক দূতাবাস, পাসপোর্ট এবং ভিসা ও প্রবাসী ভারতীয় বিষয়ক সচিব শ্রী সঞ্জয় ভট্টাচার্য এবং মিশরের সহকারী বিদেশ মন্ত্রী তথা রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আবু আল-খির এবং আরব রাষ্ট্রসমূহের লীগে মিশরের স্থায়ী প্রতিনিধি সহ আরব দেশগুলি, ভারত এবং আরব রাষ্ট্রসমূহের লীগের  সাধারণ সচিবালয়ের  পদস্থ আধিকারিকগণ এই বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।

পদস্থ আধিআকরিকগণ আরব বিশ্ব ও ভারতের মধ্যে বিদ্যমান ঐতিহাসিক এবং সভ্যতার সম্পর্কের কথা স্মরণ করেন এবং উভয় পক্ষকে একত্রে আবদ্ধ করার জন্য বাণিজ্যিক ও সাংস্কৃতিক সম্পর্কের অবদানকে তুলে ধরেন। তারা আরব-ভারত সহযোগিতার সুদৃঢ় ভিত্তি এবং দুর্দান্ত সম্ভাবনা  এবং আরব-ভারত সম্পর্ককে প্রশস্ত দিগন্তের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে যে ভূমিকা নিতে পারে তার প্রশংসা করেছে।

পদস্থ আধিকারিকগণ উভয় পক্ষের মধ্যে সহযোগিতা এবং সমন্বয় ব্যবস্থা মজবুত করার গুরুত্বকে জোর দিয়ে, আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক শান্তি ও সুরক্ষা বজায় রাখতে উভয় পক্ষের মধ্যে পারস্পরিক উদ্বেগের বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনা করেন। এ ক্ষেত্রে তারা প্রাদেশিক আন্তর্জাতিক বৈধতা সম্পর্কিত সংকল্প এবং প্রাসঙ্গিক চুক্তি ও রেফারেন্স অনুযায়ী বিশেষত ফিলিস্তিনি বিষয়, সিরিয়া, লিবিয়া ও ইয়েমেনের সংকটসমূহের উপর ভিত্তি করে আঞ্চলিক সমস্যা এবং মধ্য প্রাচ্যের সঙ্কটের রাজনৈতিক সমাধানের প্রয়োজনীয়তার বিষয়টি উল্লেখ করেন এবং আন্তর্জাতিক আইনের নীতিমালা অনুসারে সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় এবং নেভিগেশন এবং সামুদ্রিক সুরক্ষার স্বাধীনতা সুনিশ্চিত করতে সহযোগিতার  ওপর জোর দেন।

কোভিড-১৯ মহামারীর প্রাদুর্ভাবের ফলে বিশ্ব যে অসাধারণ পরিস্থিতি এবং অভূতপূর্ব চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হচ্ছে, সেগুলির জন্য এই মহামারীটির পরিণতি মোকাবিলা করার জন্য সংঘাত ও সংকটের ক্ষেত্রগুলি সহ আন্তর্জাতিক এবং আঞ্চলিক সহযোগিতা জোরদার করা প্রয়োজনের ওপর আধিকারিকগণ জোর দেন। উভয় পক্ষই রোগনির্ণয় এবং চিকিত্সার ক্ষেত্রে ভারত ও আরব রাষ্ট্রগুলির মধ্যে চলতি সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা করেছে এবং কোভিড-পরবর্তী অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারের জন্য নিজ নিজ জাতীয় দৃষ্টিভঙ্গীর বিষয়ে মতবিনিময় করেছেন।

আঞ্চলিক বিষয়গুলির বিষয় ও পারস্পরিক উদ্বেগ সহ আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ভারতের নিরবচ্ছিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার প্রত্যাশায় আরব পক্ষ রাষ্ট্রসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের অ-স্থায়ী সদস্য হিসাবে দুই বছরের জন্য (২০২১-২০২২) নির্বাচনের জন্য ভারতকে অভিনন্দন জানিয়েছে।

পদস্থ আধিকারিকগণ আরব-ভারত সহযোগিতা ফোরামের কাঠামোয় অর্থনীতি, বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, জ্বালানি ও পরিবেশ, কৃষি ও খাদ্য সুরক্ষা, পর্যটন ও সংস্কৃতি, মানবসম্পদ উন্নয়ন, শিক্ষা এবং স্বাস্থ্যসেবা, বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তি, মিডিয়া সহ অন্যান্য ক্ষেত্রেও সহযোগিতা বাড়ানোর বিষয়ে আলোচনা করেন।

রাজনৈতিক পর্যায়ে কৌশলগত অংশীদারিত্ব ও দ্বিপাক্ষিক বোঝাপড়ার সঙ্গে সাযুজ্য রেখে ভারত ও আরব দেশগুলির মধ্যে অর্থনৈতিক সম্পর্ককে মজবুত করতে হবে। ভারত-আরব দেশগুলির অর্থনৈতিক সম্পর্কের মূল উপাদানগুলি হল শক্তি সুরক্ষা, খাদ্য সুরক্ষা, মানবসম্পদ বিনিময়, ক্রমবর্ধমান বাণিজ্য এবং বিনিয়োগের সম্পর্ক এবং মজবুত যোগাযোগ ব্যবস্থা। বিশেষজ্ঞরা ভারত ও আরব দেশগুলির মধ্যে সম্পর্ক  বহুমুখী এবং বিস্তৃত ও  ব্যাপক সম্ভাবনাময়   বলে মত প্রকাশ করেন।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রকের মতে, ভারতের তেল আমদানির ৫৩ শতাংশ এবং গ্যাস আমদানির ৪১ শতাংশই আরব অঞ্চল থেকে আসে। ইরাক, সিরিয়া, লিবিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরশাহি, ইয়েমেন এবং দক্ষিণ সুদানের তেল ব্লকে ভারতের অংশ রয়েছে। অংশীদারিত্বের প্রকৃতি ক্রেতা ও বিক্রেতার মধ্যে   হাইড্রোকার্বন  সংক্রান্ত সম্পর্কেই থেমে থাকে নি বরং  আপস্ট্রিম এবং ডাউনস্ট্রিম প্রকল্পে অংশ নেওয়া, তেল শোধনাগারগুলিতে যৌথ উদ্যোগ এবং কৌশলগত তেল মজুদ তৈরির ক্ষেত্রে বিকশিত হয়েছে।

ভারত ও আরব উভয় অঞ্চলই অর্থনীতিতে সংস্কার ও রূপান্তরমুলক পরিবর্তনের সঙ্গে জড়িত থাকার কারণে, জনগণের মধ্যে মজবুত রাজনৈতিক বোঝাপড়া এবং সদিচ্ছা অর্থনৈতিক সম্পর্ককে আরও সুদৃঢ় করার জন্য ব্যাপক সম্ভাবনা প্রদান করেছে।

উভয় পক্ষ আরব-ভারত সাংস্কৃতিক উৎসবের তৃতীয় অধিবেশন, শক্তি ক্ষেত্রে আরব-ভারত সহযোগিতা বিষয়ক আলোচনাচক্র, সহ  প্রথম আরব-ভারত বিশ্ববিদ্যালয়  সম্মেলন, মিডিয়া ক্ষেত্রে আরব-ভারত সহযোগিতা সম্পর্কিত আলোচনাচক্র এবং আরব-ভারত অংশীদারিত্ব সম্মেলনের ষষ্ঠ অধিবেশন সহ ফোরামের যৌথ কার্যক্রমের সূচী নির্ধারণের বিষয়ে একমত হয়েছিল। পারস্পরিক সুবিধাজনক সময়ে আরব-ভারত সহযোগিতা ফোরামের দ্বিতীয় মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক শীঘ্রই  ভারতে অনুষ্ঠিত হতে পারে।

[মূল রচনা- পদম সিং]